মার্কিন সামরিক সহায়তা হতে পারে আশির্বাদ

0
143

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্র সর্বরাহের জন্য অন্যতম একটি পরিচিত আইন হচ্ছে EDA( Excess Defense Article). এই Act এর মাধ্যমে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাদের পুরাতন অস্ত্র নামমাত্র মূল্যে বন্ধু রাষ্ট্রদের সরবরাহ করে থাকে।

সাধারণত নতুন করে যুদ্ধে জড়ালে মার্কিন বাহিনী বিভিন্ন ধরনের অস্ত্র নতুন করে ক্রয় করে বা মোতায়েন করে। যুদ্ধ শেষ হলে সেই অস্ত্রগুলো তাদের আর দরকার পরেনা। অর্থাৎ এগুলো অতিরিক্ত অস্ত্র। তখন বহির্বিশ্বে মোতায়েন করা অতিরিক্ত অস্ত্র সমূহ আর নিজ দেশে ফিরিয়ে নেয়না বা নিলেও সেগুলো বন্ধু রাষ্ট্রদের খুব কম মূল্যে সরবরাহ করে।

এছাড়াও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর হাতে নতুন কোনো অস্ত্র যুক্ত হলে পুরাতন অস্ত্র সমূহ ও EDA এর মাধ্যমে বিক্রি করে দেওয়া হয়। EDA এর জন্য নিয়মিত তালিকা হয়ে থাকে। সেই তালিকায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মালিকানাধীন অতিরিক্ত অব্যবহৃত অস্ত্র সমূহ তালিকাভুক্ত করে রাখা হয়। সেখান থেকে মিত্র রাষ্ট্ররা আবেদন করে চাহিদা অনুযায়ী। এরপর যথাযথ আইনি অনুমোদন এর পর তা সরবরাহ করা হয়।

বিশ্বের বিভিন্ন সামরিক বাহিনী কম খরচে মার্কিন EDA থেকে অস্ত্র ক্রয় করে শক্ত ভীত এর উপর দাঁড়িয়েছে। তুরস্ক সহ বিভিন্ন দেশের নৌবাহিনী যুক্তরাষ্ট্র থেকে পুরাতন ফ্রিগেট ক্রয় করে মেরুদন্ড শক্ত করেছিল।

যাইহোক বর্তমানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কাছে ১২০০ এর অধিক এফ-১৬ যুদ্ধবিমান রয়েছে। এছাড়াও তাদের রিজার্ভ এ রয়েছে ১০০ এর কাছাকাছি এফ-১৬ । এফ-১৬ যুদ্ধবিমান গুলোর লাইফটাইম ছিল ৮০০০ ঘন্টা। আপগ্রেড করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এগুলোর লাইফটাইম ১২০০০ ঘন্টা করার পরিকল্পনা নিয়েছে। তবে সবগুলো তারা আপগ্রেড করবেনা। বেশিরভাগই এফ-৩৫ দিয়ে রিপ্লেস হবে।

সুতরাং কোনো বাহিনী যদি এক স্কোয়াড্রন(১৬)টি নতুন এফ-১৬ ক্রয় করে। তাহলে আরো ১/২ স্কোয়াড্রন পুরাতন এফ-১৬ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নামমাত্র মূল্যে সরবরাহ করবে। সেগুলো আপগ্রেড করে আরো ৪/৫ হাজার ঘন্টা অতিরিক্ত চালানো যাবে। বছরে ২০০ ঘন্টা ফ্লাই করলে আরো ২০/২৫ বছর সার্ভিস দিবে। মনে রাখতে হবে এগুলো কিন্তু AMRAAM মিসাইল নিয়ে উড়বে। ভালোমতো AWACS এর সাপোর্ট পেলে যেকোনো বাহিনীর জন্য হুমকি হবে এগুলো।

আর সিঙ্গেল ইঞ্জিন এর যুদ্ধবিমান হওয়ায় এর পরিচালনা ব্যয় তুলনামূলক কম। তাই ব্যাকবন ফ্লিটের রোলে ভালো পারফর্ম করবে। কম খরচে শক্ত ভীত গঠনের জন্য আমাদের মতো দেশের জন্য EDA হতে পারে আশির্বাদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here